ব্যক্তিত্ববান হওয়ার সহজ উপায় | চলুন জেনে আসি- পর্ব ২

2
661
জন পড়েছেন
personality

আমাদের একটা কথা প্রায় শুনতে হয় যে, তোমার ব্যক্তিত্ব নেইব্যক্তিত্ববান হওয়ার উপায় গুলোই বা কি কি, আসলে ব্যক্তিত্ববান বলতে কি বুঝায়?

চলুন জেনে আসি ব্যক্তিত্ববান মানুষ হিশবে কিভাবে নিজেকে গড়ে তুলবো তার আদ্যোপান্ত । আমাদের প্রথম পর্বে আমরা বলেছি  কিভাবে আপনি আপনার ভিতরের ব্যক্তিত্বকে কিভাবে জাগিয়ে তুলবেন সে বিষয়ে । প্রথম পর্বটি মিস করে থাকলে নিচের লিংকে ক্লিক করুন ।

ব্যক্তিত্ববান হওয়ার সহজ উপায় | চলুন জেনে আসি- পর্ব ১

 

 

personality

আর আজ পর্ব-২ এ থাকছে অন্যের কাছে নিজের ব্যক্তিত্বকে কিভাবে সুন্দরভাবে তুলে ধরবেন সে বিষয়ে ।তাহলে আর দেরী কেনো, চলুন জানা যাক । 

১.প্রশ্ন করা এবং অন্যের প্রতি আগ্রহী হওয়াঃ 

ব্যক্তিত্বকে ফুটিয়ে তুলতে এটি একটি সহজ কিন্তু বেশ গুরুত্বপূর্ণ অভ্যাস । মানুষজন নিজেদেরকে নিয়ে কথা বলতে পছন্দ করে । আপনি যদি কৌতূহলী এবং দূরদৃষ্টিসম্পন্ন মানুষ হন, তবে কারো সাথে কথা বলে আপনি তার সম্পর্কে বেশ মজার অনেক কিছু জানতে পারবেন ।

 

যার সাথে আপনি কথা বলছেন, তার আগ্রহ যে বিষয়ে সবচেয়ে বেশি তা খুব ভালোভাবে জানার জন্য প্রশ্ন করতে থাকুন । দেখা যায়, বেশিরভাগ লোকই তাদের কাজ, পরিবার বা সন্তানদের নিয়ে কথা বলতে পছন্দ করেন ।

 

তারা কোন ব্যাপারে কৌশলী, খুঁজে বের করে ভালোভাবে কথোপকথন শেষ করুন ।

 

একটি উদাহরণ দেওয়া যেতে পারে ।

মনে করুন আপনি কারো পছন্দ সম্পর্কে জানতে চান । এজন্য তাকে অসংখ্য প্রশ্ন করার দরকার নেই । শুধু তার কথার সাথে তাল মিলিয়ে আপনার অভিজ্ঞতা থেকে প্রশ্ন করুন । হতে পারে আপনার পাহাড়ে বাইক চালানো খুব পছন্দের এবং লোকটিরও তাই । এক্ষেত্রে আপনি পাহাড়ে কতটা ভালো বাইক চালাতে পারেন সে বিষয়ে কথা না বলে লোকটির অভিজ্ঞতা সম্পর্কে প্রশ্ন করতে পারেন ।

বেশিরভাগ লোকই তাদের কাজ, পরিবার বা সন্তানদের নিয়ে কথা বলতে পছন্দ করেন

 

personality

২.নিজের আত্মবিশ্বাস দেখানঃ

আপনি যেমন নন নিজেকে তেমনভাবে প্রকাশ করার প্রয়োজন নেই । আত্নবিশ্বাস নিজের স্বরূপকে তুলে ধরে । আত্মবিশ্বাসী হওয়ার অর্থ হঠাৎ করেই আপনাকে এক্সট্রভার্ট বা অনেক বেশি কথা বলা স্বভাবের অধিকারী হতে হবে এমনটা নয় । নিজেকে নিজে বলুন, আপনি অসাধারণ একজন ।

ব্যক্তিত্ববান হওয়ার প্রথম শর্ত হচ্ছে আত্নবিশ্বাসের সাথে নিজের স্বরূপকে তুলে ধরা । 

 

আপনার যে ব্যক্তিত্ব তার প্রতি আত্মবিশ্বাসী থাকুন, তাতে অন্যরাই আপনার প্রতি আকৃষ্ট হবে । আপনাকে অন্য কিছু করতে হবে না, মানুষ তাকেই পছন্দ করে, যিনি ভেতরে বাইরে একজনই । যার মধ্যে কোন লুকোচুরি কিংবা শো আপ নেই । তাই নিজের ব্যক্তিত্বের ওপর পূর্ণ আস্থা রাখুন।

 

personality

 

৩.হাসিখুশি ও চিন্তামুক্ত থাকুনঃ

অন্যের জীবনে কিছু আনন্দপূর্ণ মুহূর্ত এনে দেওয়ার জন্য তারা আপনার প্রতি কৃতজ্ঞ থাকবে । অন্যের অবস্থান নিয়ে কখনো হাসিঠাট্টা করবেন না । সবকিছুর প্রতি ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি বজায় রাখুন ।

personality

কোনো সমস্যার মুখোমুখি হলে সেটি নিয়ে দুশ্চিন্তায় না থেকে কিংবা সে বিষয়ে অভিযোগ না করে, অন্যদের সাথে হাসিখুশি থাকার চেষ্টা করুন । সবাই আপনার ব্যক্তিত্বের প্রশংসা করবে, আর এটিই হয়ত আপনাকে ভালো রাখতে সাহায্য করবে ।

 

 

৪.সহানুভূতি-সম্পন্ন হওয়াঃ

এটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি ধাপ । আপনি যেমনই হোন না কেন,যদি আপনি অন্যের প্রতি সহানুভূতিপূর্ণ মনোভাব রাখেন, তবে শুধুমাত্র তারাই আপনাকে অপছন্দ করবে যারা আসলে আপনার প্রতি ঈর্ষান্বিত । অন্যের প্রতি কঠোর হওয়ার কিছু নেই ।

ব্যক্তিত্ববান হিশেবে নিজেকে গড়ে তুলতে গুরুত্বপূর্ণ একটা ধাপ হচ্ছে, নতুন সম্পর্কের ক্ষেত্রে মনের দরজা খোলা রাখা । 

 

Personality

 

কেউ যদি আপনার সাথে খারাপ ব্যবহার করে, তবে মনে করার চেষ্টা করুন আপনার কোন কাজটি তাকে এমন ব্যবহার করতে বাধ্য করেছে । হতে পারে তারা তাদের জীবনের কঠিন পরিস্থিতির মাঝে অবস্থান করছে, কিন্তু প্রকৃতপক্ষে তারা খুবই ভালো মানুষ । অন্যের মাঝে ভালো দিক খোঁজ করার চেষ্টা করুন ।

 

 

আপনাকে বোকাসোকা হতে হবে এমনটা নয় । আপনি সংশয়পূর্ণ থাকতেই পারেন, কিন্তু এর অর্থ এই নয় যে, এজন্য আপনি অন্যের সাথে খারাপ ব্যবহার করবেন ।

 

personality

 

৫.স্থির, শান্ত ও নিরুদ্বেগ থাকাঃ 

 

personality

সবসময় নিজেকে স্থির রাখুন । বিশেষ করে যেসব পরিস্থিতিতে অন্যেরা সহজে ঘাবড়ে যায়, সেসব ক্ষেত্রে যদি আপনি নিজেকে শান্ত রাখতে পারেন, তাহলে সবার কাছে আপনার মূল্যায়ন বেড়ে যাবে । যেটা যেভাবে ঘটে, তাকে সেভাবেই গ্রহণ করুন ।

খুব বেশি উত্তেজিত কিংবা একেবারে নিষ্ক্রিয় থাকা কোনটাই কাজের না । এই ব্যাপারটা আপনাকে সচেতনভাবেই নিয়ন্ত্রণ করতে হবে ।

অন্যের মাঝে ভালো দিক খোঁজ করার চেষ্টা করুন ।

 

আপনার এই নিয়ন্ত্রিত থাকার গুনটি সবার কাছে আপনার গুরুত্ব বাড়িয়ে দেবে । একটি উদাহরণ দেওয়া যাক, যদি কারো কোন সমস্যা হয়ে থাকে, তবে তাকে প্রফুল্ল এবং চিন্তামুক্ত রাখতে চেষ্টা করুন ।

৬.সম্পর্কের দরজা খোলা রাখুন: 

কারো সম্পর্কে সহজেই কোনো সিদ্ধান্তে আসবেন না । যদি আপনার কাউকে পছন্দ নাও হয়, তবুও তাকে অন্তত একটি সুযোগ দিন । এমন সুযোগ নিশ্চয়ই আপনিও চান । তাই নয় কি? কারো কাছে ভাল ব্যবহার পেতে হলে, নিশ্চয়ই তার সাথে আপনাকেও ভাল ব্যবহার করা উচিত ।

 

 

যারা আপনার থেকে বেশি জনপ্রিয় কিংবা যাদের কাছ থেকে আপনি সাহায্য পেতে পারেন শুধুমাত্র তাদেরকেই বন্ধু বানাতে হবে এমনটা ভাবার কোন কারণ নেই । সবার সাথেই পরিচিত হওয়ার চেষ্টা করুন । সবসময় ভাল সম্পর্ক বজায় রাখুন যাদের সাথে থাকতে আপনার ভালো লাগে । আর অবশ্যই নতুন সম্পর্কের ক্ষেত্রে মনের দরজা খোলা রাখুন ।

ধন্যবাদ । এতক্ষণ আমাদের সাথে থাকার জন্য । এই লেখাটি ভাল লাগলে শেয়ার করুন । যাতে আপনার একটি শেয়ারের মাধ্যমে অন্য আরেকজন মানুষ উপকৃত হতে পারে । কমেন্ট করে আপনার সমস্যার কথা জানান আমাদের । প্রস্তাব করতে পারেন আপনার প্রত্যাশা ।

আপনার মতামতের গুরুত্ব আমাদের কাছে অনেক । ভাল থাকুন । এগিয়ে চলুন নতুন উদোমে, জয় আপনার হবেই ।

 

Facebook Comments
SHARE