সাও পাওলোর ফুটপাত থেকে বিশ্বসেরা নেইমার | সংক্ষিপ্ত জীবনী

2
1477
জন পড়েছেন
নেইমার, নেইমারের জীবনী, নেইমারের সংক্ষিপ্ত জীবনী, বিশ্বসেরা নেইমার জুনিয়র, সেরা ফুটবলার নেইমার
নেইমার

বিশ্বসেরা নেইমার জুনিয়র । বর্তমানে সবচেয়ে আলোচিত ফুটবলারদের মধ্যে অন্যতম একজন । একজন বিশ্বসেরা নেইমার হয়ে উঠার পেছনে ছিলো কঠোর সংগ্রাম আর দুঃখ- দুর্দশার গল্প । সাও পাওলোর ফুটপাত থেকে আজ একজন সফল প্রফেশনাল বিশ্বসেরা ফুটবলার এক কঠিন বন্ধুর পথ পাড়ি দিতে হয়েছে তাকে ।

বিখ্যাতদের সফলতার গল্প’ সিরিজের এবারের এপিসোডে নিয়ে এসেছি একজন সেরা ব্রাজিলিয়ান ফুটবলার- নেইমার জুনিয়র। ফুটবলের নিয়ে কথা বলা হলে মেসি এবং রোনালদোর পরই আলোচনায় আসে নেইমার ।

আগের দুই পর্বে আমরা অপর দুই কিংবদন্তী গ্রেট মেসি এবং রোনালদোকে নিয়ে আলাদা আলাদা ভাবে আলোচনা করেছি । যেখানে খুব সাধারণ পরিবার থেকে এক কঠিন পথ পারি দিয়ে তাদের আজকের অবস্থানে উঠে আসার গল্প বলেছি ।

বিশ্বসেরা ফুটবলার নেইমার
নেইমার

স্বপ্নের প্রতি তাদের কতটা ডেডিকেশন ছিল, কতটা পরিশ্রমী ছিলেন তা  আমরা দেখানোর চেষ্টা করেছি । মিস করে থাকলে  পড়ে আসুন ।

তো শুরু হয়ে যাক, আজকের পর্ব- নেইমারের সংক্ষিপ্ত জীবনী, তার সফলতার গল্প ।

আপনি যদি সমালোচিত না হন, তাহলে আপনি ভুল কাজটি করছেন।

 

পড়ে আসুনঃ ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর সংক্ষিপ্ত জীবনী

 

বিশ্বসেরা ফুটবলার নেইমার
নেইমার

নেইমার দা সিল্ভা স্যান্তোস জুনিয়র- যাকে আমরা সবাই নেইমার নামেই জানি । একজন চৌকস ব্রাজিলিয়ান খেলোয়াড় যিনি স্প্যানিশ ক্লাব  বার্সেলোনা এবং ব্রাজিল জাতীয় দলের হয়ে একজন ফরোয়ার্ড বা উইঙ্গার হিসেবে খেলেন । অন্য সব কিংবদন্তী খেলোয়াড়দের মত নেইমারেরও ফুটবল জীবন শুরু হয় অলি-গলিতে খেলে ।

বিশ্বসেরা ফুটবলার নেইমার
নেইমার

তার বাবা সিনিয়র নেইমার দা সিল্ভা একজন প্রাক্তন ফুটবলার এবং পরবর্তীতে নেইমারের পরামর্শক হিসেবে কাজ করেন । নেইমার তাঁর পিতার ভুমিকা সম্পর্কে বলেন, “আমার পিতা আমার পাশেই থাকেন সেই ছোটবেলা থেকেই এবং তিনি সবকিছুর খেয়াল রাখেন । তিনিই আমার সব সময়ের সঙ্গী এবং আমার পরিবারের অন্যতম একজন ।‘

খুব কম বয়সেই একজন দক্ষ ফুটবলার হিসেবে বেড়ে উঠে নেইমার । মাত্র ১৭ বছর বয়সে নেইমার প্রফেশনাল ফুটবলার হিসেবে খেলা শুরু করেন, আর শুরু করার মাত্র দুই বছর পর ২০১১-২০১২ সালে সাউথ আমেরিকান ফুটবলার অ্যাওয়ার্ড নিজের নামে করে নেন ।

এছাড়াও আরও অসংখ্য পুরস্কার ঝুলে আছে তার ঝুড়িতে । চলুন তার আগে আমরা নেইমারের জীবনের উত্থানের কথা জেনে নেই ।

আমার পিতা আমার পাশেই থাকেন সেই ছোটবেলা থেকেই এবং তিনি সবকিছুর খেয়াল রাখেন

 

নেইমারের জন্ম ৫ ফেব্রুয়ারি ১৯৯২, ব্রাজিলের মগি দাস ক্রুজেস নামক স্থানে । তার বাবা সিনিয়র নেইমার ডা সিল্ভা এবং মা নান্দিনি সান্তস । যেহেতু বাবা একজন প্রফেশনাল ফুটবলার ছিলেন, তাই প্রথম হাতেখড়িটা বাবার কাছেই । খুব অল্প সময়েই তিনি ব্রাজিলের সান্তস ফুটবল ক্লাব কর্তৃপক্ষের নজরে আসেন তিনি ।

 

বিশ্বসেরা ফুটবলার নেইমার
নেইমার

২০০৩ সালে সান্তস ফুটবল ক্লাব খেলায় চুক্তিবদ্ধ করেন নেইমারকে । এবং তাঁকে যুব একাডেমিতে খেলানো হয় । কয়েক বছর সান্তসের যুব একাডেমিতে এ থাকার পর এই ক্লাবেরই সিনিয়র টিমে তাঁকে সাইন করানো হয় । এভাবে তিনি ১৭ বছর বয়সে প্রফেশনাল ক্লাবে খেলা শুরু করেন ।

আর দেখতে দেখতেই সে তার টিমের একজন দক্ষ গোল মেকারে পরিণত হন । সান্তসের হয়ে ২২৫ ম্যাচে ১৩৬ গোল করেন তিনি ।

বার্সেলোনার হয়ে ৪০৬ ম্যাচে ২৩৬ গোল করেন

নেইমার মাত্র ১৪ বছর বয়সে স্পেনের ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদে খেলার প্রস্তাব পেয়েছিলেন । কিন্তু ব্রাজিলে ওই সময়ে তার অদ্ভুত ট্যালেন্টের জন্য বিপুল অর্থের বিনিময়ে নিজেদের ক্লাবে খেলানোর জন্য তাঁকে রেখে দেয় । এদিকে নেইমার দিনে দিনে এই ক্লাবের হয়ে তার খেলার ধারাবাহিকতাকে আরও জোরালো করতে থাকে । নেইমার হয়ে উঠতে থাকলেন একজন নিখুঁত ফুটবল প্লেয়ার ।

বিশ্বসেরা ফুটবলার নেইমার
নেইমার

তার খেলা দেখে বড় বড় ফুটবল ক্লাবগুলো তাঁকে নেয়ার জন্য আলোচনায় বসে গেল । ২৭ মে ২০১৩ সালে নেইমার প্রায় ৭৬ মিলিয়ন ডলারে বার্সেলোনায় হয়ে খেলার জন্য চুক্তি স্বাক্ষর করেন । ২০১৪ সালে বিশ্বকাপ ফুটবলে নেইমার ব্রাজিলের একজন দারুণ সম্ভবনাময় খেলোয়াড় হিসেবে দলে খেলেছেন । এই বিশ্বকাপে তার দল ব্রাজিল ছিল ষষ্ঠ বিশকাপ জয়ের খোঁজে ।

কিন্তু চার ম্যাচ খেলায় পর দুর্ভাগ্যজনকভাবে তিনি কোয়াটার ফাইনাল ইঞ্জুরিতে পড়েন । জার্মানির বিপক্ষে সেমিফাইনালে সে ম্যাচে তার খেলা হয়নি । আর ব্রাজিল ওই সেমিফাইনালে খুব বাজেভাবে হেরে যায় । নেইমার ইঞ্জুরি থেকে ফিরে আবারও আগের মত খেলা শুরু করেন, ২০১৪-২০১৫ সেশনে বার্সেলোনা হয়ে ৩৯ গোল করেন নেইমার ।

এখন পর্যন্ত তিনি বার্সেলোনার হয়ে ৪০৬ ম্যাচে ২৩৬ গোল করেন ।

 

বিশ্বসেরা ফুটবলার নেইমার
নেইমার

পড়ে আসুনঃ ফুটবল মহাতারকা লিওনেল মেসি

 

ফুটবল বিশেষজ্ঞদের ধারণা, বর্তমানে হয়ত মেসি কিংবা রোনালদোর প্রভাবে কিছুটা আলোচনার আড়ালে পড়ে আছেন নেইমার কিন্তু আগামী ৫ বছরের মধ্যে ফুটবল রাজত্ব চলে আসবে নেইমারের হাতে । আগামী দিনগুলোতে নেইমার আসলেই ফুটবল রাজত্ব করবে কিনা সেটা সময়ই বলে দেবে ।

আপনার কি মনে হয়, নেইমার কি পারবে মেসি কিংবা রোনালদোকে ছাড়িয়ে যেতে?

 

বিশ্বসেরা ফুটবলার নেইমার
নেইমার

আপনার আশে পাশে যদি এমন কোন মানুষ থাকে যার এই লেখাটি পড়া উচিত বলে মনে করেন , তার সাথে অবশ্যই শেয়ার করবেন । অনুপ্রেরণামূলক গল্প, সফল ব্যক্তিদের জীবনী, সফলতার সূত্র এবং জীবনের নানান সমস্যা আপনাদের পাশে আছে পাই ফিঙ্গার্স মোটিভেশন ।

সফলতা কেবল আপনার জন্যই ।

 

Facebook Comments
SHARE